You are currently viewing ওশেনিয়া মহাদেশের দেশগুলোর রাজধানী
Oceania is the capital of the countries of the continent

ওশেনিয়া মহাদেশের দেশগুলোর রাজধানী

ওশেনিয়া মহাদেশের দেশগুলোর রাজধানী সমুহ জানতে এবং বিভিন্ন পরীক্ষায় অংশগ্রহন করতে অবশ্যই পড়ারা কোন বিকল্প নাই। ওশেনিয়া বিশ্বের ক্ষুদ্রতম মহাদেশ | ওশেনিয়া মহাদেশের স্বাধীন দেশ ১৪ |ওশেনিয়া মহাদেশ এর আয়তন ৮১ লাখ ১২ হাজার বর্গ কিমি।সাধারণ আলোচনা: আয়তন এবং জনসংখ্যায় ওশেনিয়া মহাদেশ ৭টি মহাদেশের মধ্যে সবচেয়ে ছোট মহাদেশ। এই মহাদেশের আয়তন ৮,৫২৫,৯৮৯ বর্গ কিলোমিটার। বর্তমান জনসংখ্যা ৩ কোটি ৬৬ লক্ষ ৬০ হাজার।

ওশেনিয়া মহাদেশ ৫টি অঞ্চলে বিভস্ত, যথা- অস্ট্রেলিয়া, নিউজিল্যান্ড, পলিনেশিয়া, মাইক্রোনেশিয়া এবং মেলোনেশিয়া অঞ্চল। এর মধ্যে অঞ্চল এবং দেশ হিসেবে অস্ট্রেলিয়া ওশেনিয়া মহাদেশের সবচেয়ে বড়। এই মহাদেশকে অনেক সময় অস্ট্রেলিয়া মহাদেশ বা অস্ট্রেলিয়ান ইকোজোনও বলা হয়ে থাকে। এই মহাদেশের দেশের সংখ্যা ১৪টি এবং প্রতিটি দেশই স্বাধীন এবং জাতিসংঘভুক্ত।

ওশেনিয়া শব্দটি প্রথম ব্যবহৃত হয় ১৮১২ সালে ভূগোলবিদ কনরাড মাল্টে ব্রুন এর মাধ্যমে। Oceanie শব্দটি এসেছে গ্রিক শব্দ ocean থেকে।

ওশেনিয়া মহাদেশের দেশগুলোর রাজধানী সমূহ নিম্নে দেওয়া হলঃ

ক্রমিক নং দেশের নাম রাজধানীর নাম
অস্ট্রেলিয়াক্যানবেরা
নিউজিল্যান্ডওয়েলিংটন
ফিজিসুভা
টোঙ্গোনুকুয়ালোফা
পাপুয়া নিউগিনিপোর্ট মোসাবি
পশ্চিম সামোয়াআপিয়া
নাউরু প্রজাতন্ত্রইয়েরেন
মার্শাল দ্বীপপুঞ্জমাজুরো
ট্রুভ্যালুফুনাফুটি
১০মাইক্রোনেশিয়াপালিকির
১১সলোমন দ্বীপপুঞ্জহোনিয়ারা
১২পালাউনেগারুলমার্ড
১৩ফ্রেঞ্চ পলিনেশিয়াপাপেট্রি
১৪ভানুয়াতুভিলা
১৫কিরিবাতিতারাওয়া

প্রশান্ত মহাসাগরের গ্রীষ্মমন্ডলীয় দ্বীপসমুহ নিয়ে এই মহাদেশ গঠিত। এই মহাদেশকে কোরাল বা প্রবাল মহাদেশও বলা হয়ে থাকে। কারণ বৃহত্তম সব প্রবাল প্রাচীর দিয়ে এই মহাদেশ পরিবেবেষ্টিত। এর পশ্চিমে সুমাত্রা দ্বীপপুঞ্জ, উত্তর-পশ্চিমে বেনিন দ্বীপপুঞ্জ, উত্তর-দক্ষিণে হাওয়াইয়ান দ্বীপপুঞ্জ এবং পূর্বে রয়েছে রাপা নুই এবং সালা গোমেজ দ্বীপপুঞ্চ। এর দক্ষিণে ম্যাকুইয়ারি দ্বীপ অবস্থিত যা তাইওয়ান পর্যন্ত।

অন্যান মহাদেশের মুদ্রা সম্পর্কে জানতে নিচের দেয়া লিঙ্ক গুলোতে ভিজিট করুন-

Leave a Reply