You are currently viewing করোনাভাইরাস থেকে রক্ষা পেতে হাত ধোয়ার গুরুত্ব
করোনাভাইরাস থেকে রক্ষা পেতে হাত ধোয়ার গুরুত্ব

করোনাভাইরাস থেকে রক্ষা পেতে হাত ধোয়ার গুরুত্ব

করোনাভাইরাস থেকে রক্ষা পেতে হাত ধোয়ার গুরুত্ব কি কি তা নিয়েই অ্বআজ আলোচনা করবো । করোনাভাইরাসের (কোভিড-১৯) মতো শ্বাসতন্ত্রে আক্রমণকারী ভাইরাসগুলো তখনই ছড়ায় যখন তা চোখ, নাক বা গলার শ্লেষ্মার মধ্য দিয়ে শরীরে প্রবেশ করে। অধিকাংশ ক্ষেত্রে তা হাতের মাধ্যমেই হয়ে থাকে। ভাইরাসটি একজন থেকে আরেকজনে সংক্রমণের প্রধান মাধ্যমও হাত । বিশ্ববাপী মহামারী আকারে যখন ভাইরাসটি ছড়ায় তখন এর বিস্তার রোধের সবচেয়ে সহজ, সাশ্রয়ী ও কার্যকর উপায়গুলোর একটি হল ঘনঘন সাবান ও পানি দিয়ে হাত ধোয়া কিংবা হাত পরিষ্কার করা ।

Advertisement

ঘন ঘন হাত ধোব, করোনাভাইরাস(কোভিড-১৯) থেকে রক্ষা পাবো।

করোনাভাইরাস থেকে রক্ষা পেতে হাত ধোয়ার গুরুত্ব

করোনাভাইরাস থেকে রক্ষা পেতে হাত ধোয়ার গুরুত্ব ও সঠিকভাবে হাত ধোয়ার বিষয়ে বিস্তারিত নিচে তুলে ধরা হল:
 

১. করোনাভাইরাস থেকে রক্ষা পেতে হাত ধোয়ার গুরুত্বকেমন করে আপনি ঠিকমতো হাত ধোবেন?

আপনার হাতকে পুরোপুরি ভাইরাস মুক্ত করতে হলে ঝটপট (বিশ সেকেন্ডের নিচে) হাতে সাবান মাখানো ও আলতোভাবে ধুয়ে ফেলায় কাজ হবে না।করোনাভাইরাস থেকে রক্ষা পেতে হাত ধোয়ার গুরুত্ব। তাই ভালোভাবে হাত ধোয়ার পদ্ধতি নিচে উল্লেখ করা হলঃ-

  • ১ম : পানি দিয়ে হাত ভেজানো।
  • ২য়: ভেজা হাতের ভালোভাবে সাবান মাখানো।
  • ৩য়: অন্তত ২০ সেকেন্ড হাত ভালোভাবে ঘষতে হবে।
  • ৪র্থ: পানি দিয়ে পুরো হাত ভালোভাবে ধুয়ে নিতে হবে।


. কতক্ষণ ধরে হাত ধুতে হবে?

ঘন ঘন অন্তত ২০ থেকে ৩০ সেকেন্ড সময় নিয়ে হাত ধোব, রোনাভাইরাস(কোভিড-১৯) থেকে রক্ষা পাবো

হ্যান্ড স্যানিটাইজারের ক্ষেত্রেও একই নিয়ম অনুসরণ করতে হবে। কমপক্ষে ৬০ শতাংশ অ্যালকোহলসমৃদ্ধ স্যানিটাইজার দিয়ে হাতের পুরোটায় মাখাতে হবে।


. কখন হাত ধোয়া উচিত?

ঘন ঘন হাত ধোব, করোনাভাইরাস(কোভিড-১৯) থেকে রক্ষা পাবো, কোভিড-১৯ প্রতিরোধের ক্ষেত্রে নিম্নোক্ত সময়গুলোতে হাত ধোয়া নিশ্চিত করতে হবে:

  1. নাক ঝাড়া এবং হাঁচি ও কাশি দেওয়ার পর।
  2. গণপরিবহন, বাজার বা উপাসনালয়ের মতো জনসমাগমস্থল ঘুরে আসার পর।
  3. ঘরের বাইরের কোনো কিছু স্পর্শ করে, এমনকি টাকা ধরার পরেও।
  4. কোনো অসুস্থ লোককে এক জায়গা থেকে আরেক জায়গায় নেওয়ার আগে, নেওয়ার সময় এবং নেওয়ার পরে।
  5. খাওয়ার আগে ।


৪. হাত ধোয়ার জন্য কি গরম পানি দরকার?

না। হাত ধোয়ার জন্য যে কোনো তাপমাত্রার পানি হলেই চলবে। সাবান ব্যবহার করলে জীবাণুনাশের জন্য ঠাণ্ডা ও গরম উভয় পানিই সমান কার্যকর।ঘন ঘন হাত ধোব, করোনাভাইরাস(কোভিড-১৯) থেকে রক্ষা পাবো।


৫. হাত কি তোয়ালে দিয়ে মুছে শুকাতে হবে?

শুষ্ক ত্বকের চেয়ে ভেজা ত্বক থেকে জীবাণু সহজে ছড়ায়। তাই হাত পুরোপুরি শুকিয়ে নেওয়াটা গুরুত্বপূর্ণ। অন্য কোথাও জীবাণু ছড়ানোর আগে তা দূর করতে হাত পরিষ্কার কাপড়, টিস্যু বা ব্যক্তিগত ব্যবহার্য তোয়ালে দিয়ে মুছে শুকিয়ে নেওয়াই সর্বোত্তম।

করোনাভাইরাস থেকে রক্ষা পেতে হাত ধোয়ার গুরুত্ব
দৈনিক কখন কখন হাত ধোবো


৬. করোনাভাইরাস(কোভিড-১৯) থেকে রক্ষা পেতে কোনটা বেশি ভালো: ঘন ঘন হাত ধোয়া নাকি হ্যান্ড স্যানিটাইজার ব্যবহার করা

সাধারণত সঠিকভাবে সাবান ও পানি দিয়ে হাত ধোয়া এবং হ্যান্ড স্যানিটাইজার ব্যবহার করা উভয়ই বেশিরভাগ জীবাণু ধ্বংসের জন্য খুবই কার্যকর। ঘরের বাইরে থাকলে হ্যান্ড স্যানিটাইজার ব্যবহার করাটাই বেশি সহজ। তবে তা ব্যয়বহুল এবং জরুরি পরিস্থিতিতে সহজলভ্য নাও  হতে পারে। অ্যালকোহলসমৃদ্ধ হ্যান্ড স্যানিটাইজার করোনাভাইরাস মেরে ফেললেও তা সব ধরনের ব্যাকটেরিয়া ও ভাইরাস নির্মূল করে না। উদাহরণ হিসেবে বলা হয়, রোটাভাইরাস বা নোরোভাইরাসের ক্ষেত্রে এটা খুব একটা কার্যকর নয়।


৭. ঘন ঘন হাত ধোব করোনাভাইরাস(কোভিড-১৯) থেকে রক্ষা পাবোসাবান না থাকলে কী করতে হবে?

সাবান ও পানি না পাওয়া গেলে ক্লোরিনযুক্ত পানি বা অন্তত ৬০ শতাংশ হ্যান্ড স্যানিটাইজার সবচেয়ে ভালো বিকল্প। এগুলোও না পাওয়া গেলে যদি সাবান মিশ্রিত পানি বা ছাই পাওয়া যায় তাহলেও ব্যাকটেরিয়া দূর করতে তা ব্যবহার করা যেতে পারে, যদিও তার কার্যকারিতার মাত্রা কম। এভাবে হাত পরিষ্কার করলে, যত দ্রুত সম্ভব সাবান ও পানি দিয়ে হাত ধোয়ার সুযোগ পেলেই তা করতে হবে এবং সে পর্যন্ত হাত দিয়ে কোনো কিছু ধরা বা অন্যদের সংস্পর্শ এড়িয়ে চলতে হবে।

ধন্যবাদঃ ইউনিসেফ বাংলাদেশ

This Post Has One Comment

  1. Salma Sultana

    Good information

Leave a Reply